টেস্ট সিরিজে ২-০তে জিতলে স্পেশাল হবে: সাকিব

Spread the love

অনলাইন ডেস্ক :

ঢাকা টেস্টে জিতে ২-০তে সিরিজ নিশ্চিত করাই টাইগারদের মূল লক্ষ্য। চট্টগ্রামে প্রথম টেস্টে ৬৪ রানে জিতে এগিয়ে রয়েছে বাংলাদেশ। ঢাকা টেস্টে বাজে পরিস্থিতির সম্মুখীন হলে জয় না পেলেও ড্রয়ে শেষ করতে চান সাকিবরা।

আগামীকাল মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ঢাকা টেস্ট শুরু হবে। ম্যাচ শুরুর ঠিক আগের দিন বৃহস্পতিবার আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে নিজেদের টার্গেট দিয়ে সাকিব বলেন, ‘অবশ্যই জেতার জন্য খেলব আমরা। যদি ওইরকম কোনো পরিস্থিতি আসে যেখানে হয়তো ড্র করার সম্ভাবনা আছে, তখন সেটা চেষ্টা করা যেতে পারে। তবে প্রথম টার্গেট অবশ্যই জেতার জন্য খেলা।’

গত জুলাই মাসে উইন্ডিজ সফরে দুই টেস্টে হোয়াইটওয়াশ হয়ে দেশে ফেরে বাংলাদেশ দল। চার মাসের ব্যবধানে সেই হারের প্রতিশোধ নেয়ার অপেক্ষায় টাইগাররা। ইতিমধ্যে চট্টগ্রামে জিতে এগিয়ে আছে বাংলাদেশ। এখন ঢাকায় জিতলেই হোয়াইটওয়াশ নিশ্চিত।

এক প্রশ্নের জবাবে বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক সাকিব বলেন, ‘আমরা যদি ২-০ তে জিততে পারি তাহলে স্পেশাল হবে। তার জন্য যেভাবে প্রস্তুতি নেওয়া দরকার আমরা সেভাবেই নিচ্ছি। যদি সেটা কোনোভাবে না হয় তাহলে আমাদের অবশ্যই লক্ষ্য যেন ১-০ তে সিরিজ জিতি। কারণ আল্টিমেট লক্ষ্য সিরিজ জেতা। আমরা চাই ডিফেন্সিভ ওয়েতে না গিয়ে পজিটিভ ফ্রেম অব মাইন্ডে সিরিজটা জিততে।’

সিরিজ জয়ের জন্য অতিরিক্ত কোনো চাপ নেই জানিয়ে সাকিব বলেন, ‘না আমার তো মনে হয় না অতিরিক্ত কোনো চাপ আছে। গত দুদিন ড্রেসিংরুমে বসে যা দেখেছি, সবাই খুব রিলাক্স মুডে আছে। একটা ম্যাচ শুরু হওয়ার আগে টিমের যতটুক আত্মবিশ্বাস থাকা দরকার ঠিক ততটুকুই আমাদের আছে। আর এই আবহটা আমরা ধরে রাখতে চাই।’

২০০৯ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজে স্বাগতিকদের হোয়াইটওয়াশ করেছিল সাকিবের নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ দল। এবার দেশের মাটিতেও একই ফল প্রত্যাশা সাকিবের।

এ ব্যাপারে বাংলাদেশ দলের টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়ক সাকিব বলেন, ‘সুযোগ আছে, তবে কাজে লাগাতে অনেক কঠিন পরিশ্রম করতে হবে। স্বাভাবিকভাবেই উইন্ডিজ দল আরও ভালো করার জন্য এক্সাইটেড থাকবে। জেতার জন্য ওরা ওদের সর্বোচ্চ দিয়ে চেষ্টা করবে। আমাদের জিততে হলে ওদের থেকে বেটার এবং চিটাগংয়ে চেয়েও ভালো পারফর্ম করতে হবে। এ জন্য আমাদের শারীরিক ও মানসিকভাবে অনেক বেশি স্ট্রং হতে হবে।’

মিরপুরের উইকেট প্রসঙ্গে সাকিব বলেন, ‘আসলে উইকেট দেখে সবসময় প্রেডিক্ট করা যায় না। যখন খেলাটা শুরু হবে তখন দেখলে বোঝা যাবে। ঢাকার উইকেট সকালবেলা একটু হলেও পেস বোলারদের হেল্প করে। বিশেষ করে যখন একটু কুয়াশা পড়ে, একটু ঠাণ্ডা ঠাণ্ডা ভাব থাকে। টেস্ট ম্যাচ পাঁচ দিনের খেলা, প্রতিদিন উইকেট চেঞ্জ হয়, প্রতি সেশনে উইকেট চেঞ্জ হয়। তাই নির্ধারিত পরিকল্পনার চেয়ে ওপেন মাইন্ডে থাকলে দলের জন্য ভালো।’

© 2018, BD News Point. All rights reserved.

Related posts

Leave a Comment